শিরোনাম :
-->
English
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
ঢাকা, সোমবার, ১৬ জুলাই ২০১৮ ইং

প্রচ্ছদ » জাতীয় !!

রাজশাহী নগরভবন দলীয়মুক্ত রাখার প্রত্যয়!

19 Sep 2013 12:40:03 AM Thursday BdST

রাজশাহী: নির্বাচিত হওয়ার তিনমাস পর দায়িত্ব বুঝে নিলেন  রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের (রাসিক) নব নির্বাচিত মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল। 

নগর ভবনে দায়িত্বপ্রাপ্ত মেয়র সরিফুল ইসলাম বাবু বুধবার বিকেলে মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলকে দায়িত্ব বুঝিয়ে দেন। 

এর আগে সকালে নগর ভবনের গ্রিনপ্লাজায় দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। এতে রাজশাহী সিটি করপোরেশনের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের পক্ষ থেকে নির্বাচিত মেয়র ও কাউন্সিলরদের সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। 

এ সময় মেয়র বুলবুল গ্রিন প্লাজায় একটি গাছের চারা রোপন করেন। 

নগর ভবনের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সাবেক মেয়র ও বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মিজানুর রহমান মিনুসহ বিএনপি ও যুবদলসহ বিভিন্ন অঙ্গ সঙ্গঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। 

দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে সংবর্ধনা অনুষ্ঠান করলেও বিকেলে মেয়র বুলবুল দায়িত্ব নেওয়ার পর নগর ভবনকে দলীয় প্রভাবমুক্ত রাখার কথা বলেন। করপোরেশনে সুসাশন প্রতিষ্ঠা করা ও মহানগরীর উন্নয়নে কাজ করারও প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। 

এছাড়া শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষা ও উন্নয়নের কথা উল্লেখ করেন। 

এদিকে, সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগদানের উদ্দেশ্যে বুধবার বেলা সাড়ে ১১টায় তিনি বিপুল সংখ্যক বিএনপি-জামায়াত, হেফাজতে ইসলাম, যুবদল ও ছাত্রদলের নেতাকর্মীকে সঙ্গে নিয়ে পায়ে হেঁটে মেয়র হিসেবে নগরভবনে প্রবেশ করেন। 

কাউন্সিলরদের সঙ্গে নিয়ে তিনি মঞ্চে উঠার পরপরই চরম বিশৃঙ্খল অবস্থার সৃষ্টি হয়। মঞ্চ দখলে নেওয়ার চেষ্টা চালায় যুবদল ও ছাত্রদলের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী। এ সময় নেতাকর্মীদের ভিড়ে কাউন্সিলর ও রাসিকের কর্মকর্তারাই মঞ্চে স্থান না পেয়ে দাঁড়িয়ে যান। সাংবাদিকদের নির্ধারিত বসার চেয়ারও দখল করে নেয় যুবদল ও ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা। 

পরে বুলবুল মাইক হাতে নিয়ে দলীয় নেতাকর্মীদের মঞ্চের নিচে নামতে ধমকালেও শেষ পর্যন্ত মঞ্চ সামলাতে ব্যর্থ হন তিনি। পরে সেইভাবেই শুরু হয় সংবর্ধনা ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে নগরীর সুধীজনদের নিমন্ত্রণ করলেও পুরো গ্রিনপ্লাজায় ছিল দলীয় (বিএনপি) নেতাকর্মী সমর্থক আর জামায়াত-হেফাজতের নেতাকর্মীদের ভিড়। 

বেলা আড়াইটা পর্যন্ত হ-য-ব-র-ল অবস্থার মধ্যেই চলে সংবর্ধনা অনুষ্ঠান। নির্ধারিত না থাকলেও রাসিকের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পাশাপাশি বিএনপি, জামায়াত, যুবদল ও ছাত্রদল নেতাকর্মীরা দলীয় ফুলের তোড়া দিয়ে তাকে সংবর্ধিত করেন। 

এ সময় মঞ্চে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও মহানগর সভাপতি মিজানুর রহমান  মিনু, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলন, জেলা বিএনপি নেতা আজিজুর রহমান ছাড়াও রাজশাহীর স্থানীয় জামায়াত এবং হেফাজতের নেতারা উপস্থিত ছিলেন। আর মঞ্চের নীচে ছিলেন বিএনপি নেতা শফিউল আলম বুলু, আসলাম সরকার, খন্দকার মিজানুর রহমান খোকনসহ আরও অনেকে। 

এদিকে, নব নির্বাচিত মেয়র ছাড়াও এদিন তার নতুন পরিষদের ৪০ জন কাউন্সিলর দায়িত্ব বুঝে পান। এর মধ্যে ৩০ জন সাধারণ এবং অন্য ১০ জন নারী কাউন্সিলর রয়েছেন।

প্রসঙ্গত, গত ১৫ জুন রাজশাহী সিটি করপোরেশনে মেয়র নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এতে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল জয়ী হন। 

এ ব্যাপারে গেজেট প্রকাশ করা হয় গত ২৪ জুন। গত ২১ জুলাই তাদের শপথ পড়ানো হয়। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে নবনির্বাচিত এ মেয়রকে শপথ পড়ানো হয়।

এর আগে নির্বাচনে ঘোষিত ফলাফলে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল পান ১ লাখ ৩১ হাজার ৫৮ ভোট। অন্যদিকে, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী সাবেক সিটি মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন পান ৮৩ হাজার ৭২৬ ভোট। 

এই সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন

পাঠকের মন্তব্য (0)

সর্বশেষ সংবাদ

সংবাদ আর্কাইভ

নামাজের সময়সূচী

ওয়াক্ত সময় শুরু
ফজর ০৩:৫৬
জোহর ১২:০৬
আসর ১৫:২৭
মাগরিব ১৮:৫০
এশা ২০:১৬
সূর্যোদয় ০৫:২২
সূর্যাস্ত ১৮:৫০
তারিখ ১৬ জুলাই ২০১৮