শিরোনাম :
-->
English
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
ঢাকা, সোমবার, ২৩ এপ্রিল ২০১৮ ইং

প্রচ্ছদ » জাতীয় !!

লালদিঘী মাঠে সমাবেশকে ঘিরে আওয়ামী লীগ- বিএনপি মুখোমুখি!

21 Oct 2013 11:12:51 AM Monday BdST

চট্টগ্রাম: একই স্থানে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি’র পাল্টাপাল্টি সমাবেশের ঘোষণায় চট্টগ্রামের রাজনৈতিক অঙ্গনে উত্তেজনা ও জনমনে শংকার সৃষ্ঠি হয়েছে। আগামী ২৫ ও ২৬ অক্টোবর লালদিঘী মাঠে সমাবেশের ঘোষণা দিয়েছে নগর আওয়ামী লীগ। অন্যদিকে ২৪ থেকে ২৭ অক্টোবর পর্যন্ত একই স্থানে সমাবেশের জন্যে এরই মধ্যে মাঠ ব্যবহারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিয়েছে বলে দাবি করছে বিএনপি নেতারা।

দু’দলই সমাবেশ সফল করতে বদ্ধ পরিকর বলে জানিয়েছে। সরকারের শেষ সময়ে এসে এরকম দু’দলের কঠোর অবস্থানে মূলত: উভয়ে মুখোমুখি হয়ে পড়েছে ।

রোববার দুপুরে চশমা হিলের বাস ভবনে নগর আওয়ামী লীগ আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সাবেক মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগ সভাপতি এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘লালদিঘীর মাঠে ২৫ ও ২৬ অক্টোবর আমরা দু’দিন সমাবেশ করার আবেদন করেছি। আমরা সর্বস্তরের জনতা ঐক্যবদ্ধভাবে চট্টগ্রামের শান্তিশৃঙ্খলা রক্ষায় লালদিঘীর মাঠে ‍অবস্থান করব। কেউ নৈরাজ্য করতে চাইলে সেখান থেকেই আমরা কর্মসূচী ঘোষণা করব।’

অন্যদিকে রোববার বিকেলে দলীয় কার্যালয় নাসিমন ভবনের সামনে কেন্দ্র ঘোষিত কর্মসুচীর অংশ হিসেবে নগর বিএনপি’র বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশে নগর বিএনপি’র সভাপতি আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেন,‘ ২৪ অক্টোবর থেকে ২৭ অক্টোবর পর্যন্ত লালদিঘী মাঠে শান্তিপূর্ণ জনসভা করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ থেকে অনুমতি নিয়েছি। যেহেতু আমরা আগে অনুমতি নিয়েছি তাই আমরা সেখানেই সমাবেশ করবো।’

এসময় তিনি প্রশাসনকে নিরপেক্ষ ভূমিকা পালনের অনুরোধ জানিয়ে বলেন, ‘মাঠ ব্যবহারের জন্য যাদের অনুমতি আছে তাদের সমাবেশ করতে দেবেন। কোনো দলের এজেন্ডা ‍বাস্তবায়ন করবেন না। দলীয় স্বার্থে কাজ করলে প্রশাসনের বিরুদ্ধে জনগণ সমুচিত জবাব দেবে।’

এদিকে একই সময় একই স্থানে সমাবেশের ঘোষণায় জনমনে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। সর্বত্র আলোচনা ২৫ অক্টোবর কি ঘটতে যাচ্ছে চট্টগ্রামে। একই স্থানে সমাবেশ আহবান ও তা সফল করতে কঠোর মনোভাব পোষণ করেছেন উভয় দলের নেতারা।

নগর বিএনপির সভাপতি আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বাংলানিউজকে বলেন, আমরা যেহেতু সমাবেশ করার অনুমতি নিয়েছি তাই সেখানেই সমাবেশ করবো।

একই স্থানে আওয়ামী লীগও কর্মসূচির ঘোষণা দিয়েছে এমন প্রশ্নের উত্তরে এটি অগণতান্ত্রিক আচরণ বলে অভিযোগ করেন নগর বিএনপির সভাপতি। তিনি বলেন, যদি তারা এমন কর্মসূচি দিয়ে থাকে তাহলে তা সাংঘর্ষিক হবে। তারা আমাদের আগে বা পরে করতে পারে। অথবা অন্য স্থানে করতে পারে।

এক্ষেত্রে প্রশাসনের নিরপেক্ষ ভূমিকা রাখা উচিত মন্তব্য করেন আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী। তিনি বলেন,‘প্রশাসন যদি দলীয় মনোভাব দেখায় তাহলে এজন্য প্রশাসনকে দায়ী থাকতে হবে।’

নগর বিএনপির সহ-সভাপতি আবু সুফিয়ান বলেন, আমরা নিয়মতান্ত্রিকভাবে যথাযথ কর্তৃপক্ষ থেকে সমাবেশের জন্য মাঠ বরাদ্দ নিয়েছি। সেখানে আওয়ামী লীগ কর্মসূচি দেয়া মানে গায়ে পড়ে ঝগড়া করার মতো অবস্থা।’

গণতান্ত্রিক ও রাজনৈতিক শিষ্টাচার চট্টগ্রামের রাজনীতিতে রয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, হঠাৎ মহিউদ্দিন চৌধুরী কেন এমন আচরণ করছেন বুঝতে পারছি না।’ 

এদিকে সমাবেশকে কেন্দ্র করে যাতে কোনও সংঘাতময় পরিস্থিতির সৃষ্টি না হয় সেই লক্ষ্যে পুলিশ সর্তকভাবে কাজ করবে বলে জানিয়েছেন সিএমপি’র এক দায়িত্বশীল কর্মকর্তা। সিএমপি’র উপ-কমিশনার পদ মর্যাদার এক পুলিশ কর্মকর্তা বাংলানিউজকে জানান, সমাবেশকে ঘিরে যাতে কোনও সংঘাতময় পরিস্থিতি সৃষ্টি না হয় এবং উভয় পক্ষ সন্তুষ্ট থাকে সেভাবেই সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

এই সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন

পাঠকের মন্তব্য (0)

সর্বশেষ সংবাদ

সংবাদ আর্কাইভ

নামাজের সময়সূচী

ওয়াক্ত সময় শুরু
ফজর ০৪:১৩
জোহর ১১:৫৮
আসর ১৫:২৬
মাগরিব ১৮:২৫
এশা ১৯:৪৪
সূর্যোদয় ০৫:৩২
সূর্যাস্ত ১৮:২৫
তারিখ ২৩ এপ্রিল ২০১৮